জগন্নাথপুর আধুয়া গ্রামে এক মেছোবাঘ খাঁচায় বন্ধি

জগন্নাথপুর আধুয়া গ্রামে এক মেছোবাঘ খাঁচায় বন্ধি

মোঃ মুকিম উদ্দিন জগন্নাথপুর উপজেলা প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার আধুয়া গ্রামের একটি বাড়িতে আজ একটি মেছোবাঘ ধরা পড়েছে। দীর্ঘদিন যাবত এই গ্রামে মেছোবাঘটি ঘুরছিল। কিছুদিন যাবত গ্রামের বিভিন্ন বাড়ীতে হানা দিয়ে হাঁস মুরগি ও ছাগল ধরে নিয়ে যেত। এই মেছোবাঘের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেন গ্রামের লোকজন। অবশেষে ফাঁদ পেতে লোহার খাঁচায় বন্ধি করা হয়েছে এই মেছোবাঘটিকে। আধুয়া গ্রামের সুবরাজ আলী জানান, বেশকিছু দিন যাবত এই মেছোবাঘ আমাদের গ্রামে ঘোরাঘুরি করছিল কেউ ধরতে পারেনি। মেছোবাঘটি প্রতিদিন গ্রামের বিভিন্ন বাড়ীতে ঢুকে হাঁস মুরগি ধরে নিয়ে খেতো। মেছোবাঘটির অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেন আমাদের গ্রামের অনেক পরিবারের লোকজন। অবশেষে এই গ্রামের জালাল আহমদ নামের এক যুবক লোহার খাঁচা তৈরী করে তার বাড়িতে খাঁচার ভেতর ভোররাতে হাঁস ও মুরগি বেঁধে খাঁচার দরজা খুলে রাখেন। সকাল সাতটার দিকে মেছোবাঘটি যখন খাঁচার ভেতরে থাকা মুরগি ও হাঁস খেতে প্রবেশ করে তখনই ওই যুবক খাঁচার দরজা বন্ধ করে দেন। জালাল আহমদ জানান,বেশ কিছুদিন ধরে গ্রামের অনেকের বাড়ীত মেছোবাঘটি ঢুকে হাঁস মুরগি ও ছাগল ধরে নিয়ে খেত। আমাদের দেশীয় ২৫ থেকে ৩০টি হাঁস ও মুরগি খেয়েছে। অবশেষে আমি ফাঁদ পেতে মেছোবাঘটি ধরেছি। তিনি জানান মেছোবাঘটি ধরে প্রথমে আনন্দ লাগছিল। কিন্তু সুনামগঞ্জ বনবিভাগের লোকজনের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি,তাঁরা বলছেন মেছোবাঘটি জেলায় নিয়ে যেতে তাঁরা আসতে পারবেন না। এখন এটা নিয়ে বেকায়দায় আছি। বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসনকে অবহিত করা হয়েছে। জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ সাজেদুল ইসলাম জানান, এবিষয়ে বনবিভাগের লোকজনের সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। তাঁরা এসেছে মেছোবাঘটি নিয়ে যাবে।

Please follow and like us:
0
20
Pin Share20

Leave a reply

Minimum length: 20 characters ::
RSS
Follow by Email
YOUTUBE
PINTEREST
LINKEDIN