অর্থমন্ত্রী’র আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত ? কুরুক্ষেত্রে পরিণত হতে পারে নাঙ্গলকোট উপজেলা আওয়ামী লীগ !

অর্থমন্ত্রী’র আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত ? কুরুক্ষেত্রে পরিণত হতে পারে নাঙ্গলকোট উপজেলা আওয়ামী লীগ !

বিশেষ প্রতিনিধিঃ অর্থমন্ত্রী এলাকায় আসেননি গত তিন বছর । উপজেলা আওয়ামী লীগের সাথে ন্যুনতম কোনো যোগাযোগ নাই । নেতাকর্মীদের ফোন রিসিভ করেন না । প্রথম অজুহাত করোনা, দ্বিতীয় রাষ্ট্রীয় কাজে ব্যস্ত ? এরপরও স্থানীয় নেতাকর্মীদের আপত্তি নাই । জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব থেকে উনার স্বাক্ষরে অনুমোদিত কমিটির বয়স এখনও দুই বছর পূর্ণ হয়নি । এখন আবার কমিটি ভেঙে আহবায়ক কমিটি করার অডিও বার্তা ? কি কারণে ভাঙবেন সেটার কোনো ব্যাখ্যা নাই । উল্লেখ্য, গতকাল শুক্রবার নাঙ্গলকোট মডেল মহিলা কলেজে উপজেলা আওয়ামী লীগের এক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয় । সভায় সভাপতি রফিকুল হোসেনের মোবাইলে অডিও কলে সংযোগ হন স্থানীয় সংসদ অর্থ মন্ত্রী ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আ হ ম মুস্তাফা কামাল ওরফে লোটাস কামাল । অর্থ মন্ত্রী হবার পর এ প্রথম উপজেলা আওয়ামী লীগের মিটিয়ে সরাসরি উপস্থিতির পরিবর্তে মোবাইলে অডিও কল । তাও আবার কমিটি ভেঙে আহবায়ক কমিটি করার বার্তা ?স্থানীয় নেতাদের মন্তব্য, মন্ত্রী সাহেব ক্ষমতা আছে বলে পুতুলের মত নাঙ্গলকোটের রাজনীতিকে যেমন ইচ্ছা তেমন নাচাতে পারেন না । স্থানীয় নেতারা আরো মন্তব্য করে বলেন, স্থানীয় আওয়ামী লীগ একজোট হয়ে অর্থমন্ত্রীকে নাঙ্গলকোটে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে তখন বিষয়টি কেমন হবে ? আলামতে দেখা যাচ্ছে নাঙ্গলকোটে আওয়ামী লীগ কুরুক্ষেত্রে পরিণত হবার আশংকা দেখা যাচ্ছে এবং পরিস্থিতি সেদিকেই আগাচ্ছে ।নাঙ্গলকোট আওয়ামী লীগ এখন অভিভাবকশূন্য । মন্ত্রী দেখভালের দায়িত্ব দিয়েছেন তার এপিএস কে এম সিং রতনকে । তার বিরুদ্ধে পাহাড়সম অভিযোগ । তিনি দুই/তিন ছাড়া আর কারো ফোনেও রিসিভ করেন না । বিশেষ করে যারা …… বস্তার মুখ বন্ধ করে উনার বাড়িতে দেখা করেন ।তবে এভাবে চলতে থাকলে ভবিষ্যতে অনুবীক্ষণ যন্ত্র দিয়েও আওয়ামী লীগের লোক খুঁজে পাওয়া যাবে না ।বিষয়টি স্থানীয় নেতারা দলের সভানেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছেন ।

Please follow and like us:
0
20
Pin Share20

Leave a reply

Minimum length: 20 characters ::
RSS
Follow by Email
YOUTUBE
PINTEREST
LINKEDIN