ইউনিয়নের উন্নয়নের স্বার্থে একজন সেবক হিসেবে আপনাদের পাশে থাকতে চাই

ইউনিয়নের উন্নয়নের স্বার্থে একজন সেবক হিসেবে আপনাদের পাশে থাকতে চাই

মোঃ মুকিম উদ্দিন : সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ১ কলকলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আব্দুস সোবহান জাতীয় দৈনিক আজকের বসুন্ধরা, শীর্ষ টিভি, শীর্ষ সমাচার জগন্নাথপুর উপজেলা প্রতিনিধি ও দৈনিক দেশবাংলা ২৪ ডটকম এর স্টাফ রিপোর্টারের সাথে এক সৌজন্য সাক্ষাতে আব্দুস সোবহান বলেন, নিঃসন্দেহে ইউনিয়ন পরিষদ একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্টান। সময়ে সময়ে এ প্রতিষ্টানের দায়িত্ব ও কর্ম পরিধি বৃদ্ধি পাচ্ছে। আমার আশা ও বিশ্বাস সরকারের বিভিন্ন অনুদান ও নিয়মিত বরাদ্দ সঠিক ব্যবহারে ইউনিয়নে দৃষ্টান্তমূলক উন্নয়ন করা সম্ভব। আমি আরোও বিশ্বাস করি অনিয়ম দুর্নীতির উর্ধ্ব উঠে সামাজিক পরিবেশ স্থিতিশীল রাখার লক্ষে সর্বজন শ্রদ্ধেয় ব্যক্তিদের নিয়ে কুসংস্কার, দুর্নীতি ও বিভিন্ন সামাজিক সমস্যানিরসন করে ন্যায় ইনসাফ বিত্তিক বিচারিক ব্যবস্থা গড়ে তুলে ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে একটি শান্তিময় সুশীল সমাজ প্রতিষ্টা করা সম্ভব।একটি সুষ্ঠু পরিকল্পনা প্রনয়নয় উক্ত পরিকল্পনা নিয়ে পরিষদের সদস্যদের নিয়ে মতামতের বিত্তিতে জনপ্রতিনিধিগন এবং সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরে নিবিড় যোগাযোগ প্রয়োজনীয় সমন্বয় ও সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা পরিকল্পনা বাস্তবায়নে সহায়ক হতে পারে। গৃহীত পরিকল্পনা বাস্তবায়নে আমি দৃঢ প্রতিজ্ঞ।উল্লেখিত লক্ষ্য উদ্দেশ্য নিয়ে আপনাদের ঘরের ছেলে এবং কারো ভাই হিসেবে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে আমি আপনাদের পাশে থাকতে চাই যদি আপনারা আমাকে আপনাদের ছেলে, ভাই, ভাতিজা, বন্ধু হিসেবে দেখেন এবং আপনাদের দোয়া, ভালবাসা ও সমর্থনের প্রত্যাশা নিয়ে আমি আসন্ন কলকলিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হওয়ার আশা করছি। এলাকার সাধারণ মানুষের সুখে-দুঃখে একজন সেবক হিসাবে আপনাদের পাশে থাকতে চাই। তাই আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলমত মত নির্বিশেষে আপনাদের সমর্থন পেলে আমি আপনাদের পাশে থেকে ইউনিয়নের প্রতিটি এলাকার উন্নয়নের জন্য কাজ করতে চাই। সবশেষে তিনি মহান আল্লাহ তা’লার নিকট ইউনিয়নবাসীর জন্য শান্তি ও প্রত্যেকের সুস্বাস্থ্য কামনা করেন।

Please follow and like us:
0
20
Pin Share20

Leave a reply

Minimum length: 20 characters ::
RSS
Follow by Email
YOUTUBE
PINTEREST
LINKEDIN