একাদশ শ্রেণির বাংলা প্রথমপত্র

একাদশ শ্রেণির বাংলা প্রথমপত্র

ডেস্ক রিপোর্ট : সিনিয়র শিক্ষক, সেন্ট গ্রেগরী হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজ লক্ষ্মীবাজার, ঢাকা

অপরিচিতা

-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

অনুধাবন প্রশ্ন

[পূর্বে প্রকাশিত অংশের পর]

১২. ‘আমি হইলে দমিয়া যাইতাম, কিন্তু মামাকে দমানো শক্ত’ – কেন?

১৩. ‘মামা আমাদের সমস্ত সংসারের প্রধান গর্বের সামগ্রী’ – ব্যাখ্যা কর।

১৪. মামা বিবাহ বাড়িতে ঢুকিয়া খুশি হইলেন না – কেন?

১৫. বাবাজি, একবার এই দিকে আসতে হচ্ছে – কেন এ আহ্বান করা হয়েছে?

১৬. আমি মাথা হেঁট করিয়া চুপ করিয়া রহিলাম – কেন?

১৭. মামার মুখ লাল হইয়া উঠিল – কেন?

১৮. অনুপম আহারে বসিতে পারিল না – কেন?

১৯. ‘ঠাট্টার সম্পর্ককে স্থায়ী করিবার ইচ্ছা আমার নাই’ – বলতে কী বোঝানো হয়েছে?

২০. ‘প্রমাণ হইয়া গেছে, আমি কেহই নই’ – ব্যাখ্যা কর।

২১. ‘কলি যে চারপোয়া হইয়া আসিল’ – কেন বলা হয়েছে? / ব্যাখ্যা কর।

২২. আক্রোশের কালো রঙের স্রোত – বলতে কী বোঝানো হয়েছে?

২৩. সমস্তই অস্পষ্ট হইয়া রহিল – বলতে কী বোঝানো হয়েছে?

২৪. ‘মনে হইল, যেন গান শুনিলাম’ – ব্যাখ্যা কর।

২৫. রাত্রে ভালো করিয়া ঘুম হইল না – কেন?

২৬. অনুপম চমকিয়া উঠিল – কেন?

২৭. কল্যাণী দেখতে কেমন ছিল?

২৮. ‘সেই সুধা কণ্ঠের সোনার কাঠিতে সকল কথা যে সোনা হইয়া ওঠে’ – ব্যাখ্যা কর।

২৯. শুনিয়া মা এবং আমি দু’জনেই চমকিয়া উঠিলাম – কেন?

৩০. ‘কী সর্বনাশ। এপক্ষেও মাতুল আছে নাকি’ – কেন বলা হয়েছে?

৩১. ‘আমি আশা ছাড়িতে পারিলাম না’ – কীসের আশা এবং কেন?

৩২. ‘এই তো আমি জায়গা পাইয়াছি’ – ব্যাখ্যা কর।

সৃজনশীল প্রশ্নের দিকগুলো

১. যৌতুকের বিরুদ্ধে সম্মিলিত প্রতিবাদ।

২. বিয়ে প্রত্যাখ্যান করার মাধ্যমে শম্ভুনাথ সেনের মধ্যে আত্মবিশ্বাসী পিতার জাগরণ।

৩. অনুপমের ব্যক্তিত্বহীন পৌরুষের উপযুক্ত জবাব।

৪. সব বিষয়ে জিততে গিয়ে মামার উপযুক্ত শাস্তি।

৫. কল্যাণীর অসাধারণ হয়ে ওঠা।

৬. দেশপ্রেমে আত্মনিবেদিত কল্যাণীর অন্যায়ের প্রতিবাদ।

৭. যৌতুক লাভের মাঝে যারা আত্মপ্রসারতা খোঁজেন তাদের বিরুদ্ধে শম্ভুনাথ সেনের দৃঢ় পদক্ষেপ।

৮. অনুপমের গুণহীন, অকর্মণ্য, ভীতু, অসময়ে প্রতিবাদী চরিত্র।

৯. কল্যাণীর ছেলে মানুষী চঞ্চলতা ও বন্ধুত্বপূর্ণ পরিবেশ সৃষ্টি।

১০. অনুপমের মামার কৃপণতা, অভদ্রচিত, স্বার্থপর আচরণ।

মূলদিক : যৌতুকের নির্মম শিকার কল্যাণীর ব্যক্তিত্বপূর্ণ জীবনকাহিনির বিপরীতে পুরুষতান্ত্রিক সমাজব্যবস্থায় ব্যক্তিত্বহীন অনুপমের পাপস্খলনের কথামালা।

মডেল সৃজনশীল প্রশ্ন-১

বিয়েতে দশ হাজার টাকা যৌতুক দেওয়ার কথা থাকলেও মেয়ের বাবা হরিহর বাবু অনেক কষ্টে পাঁচ হাজার টাকা জোগাড় করতে সমর্থ হয়েছেন। বাকি টাকা এক মাসের মধ্যে বাড়ি বিক্রি করে দিতে চাইলেও বরের বাবা সুদেব বাবু তা মেনে নিতে নারাজ। বিয়ের বাসর থেকে সুদেব বাবু ছেলে সুমিতকে চলে আসতে বলে। সুমিত বাবার কথায় সাড়া দেয় না। সবার সম্মুখে পিতার কথা অগ্রাহ্য করে ছেলে বিয়ে করায় সুদেব বাবু নিজে অপমানিত বোধ করেন।

ক) হরিশ কোথায় কাজ করে?

খ) হরিশ আসর জমাইতে অদ্বিতীয় – বলতে কী বোঝানো হয়েছে?

গ) উদ্দীপকে সুমিতের সাথে অপরিচিতা গল্পের অনুপমের বৈসাদৃশ্য তুলে ধর।

ঘ) ‘উদ্দীপকের সুদেব বাবু আর অপরিচিতা গল্পের অনুপমের মামা একই চেতনার ধারক’ -মন্তব্যের যথার্থতা নিরূপণ কর।

প্রশ্ন-২

বৃদ্ধ ব্যক্তি আমজাদ মিয়ার সঙ্গে বাবা বিয়ে ঠিক করায় তানিয়ার মন ভালো নেই। বাবার সংসারের আর্থিক অনটনের বিষয়টি জেনে তানিয়া বাবাকেও দোষ দিতে পারে না। অবশেষে বাবাকে বলে বিয়ে ভেঙে দেয় এবং শহরের একটি কারখানায় চাকরি নেয়। দুই বছর কাজ করে বাবার সংসারে সচ্ছলতা আনে তানিয়া। অবশেষে বাবা ভালো ছেলে দেখে তানিয়াকে বিয়ে দেয়।

ক) শম্ভুনাথ বাবু কী কাজ করেন?

খ) ঠাট্টার সম্পর্কটাকে স্থায়ী করিবার ইচ্ছা আমার নাই – বলতে কী বোঝানো হয়েছে?

গ) উদ্দীপকের তানিয়ার সঙ্গে অপরিচিতা গল্পের কল্যাণীর সাদৃশ্য বর্ণনা কর।

ঘ) ‘উদ্দীপকে তানিয়ার বিয়ে ভেঙে দেওয়া আর অপরিচিতা গল্পে কল্যাণীর বিয়ে ভেঙে দেওয়ার প্রেক্ষাপট অভিন্ন নয়’- মন্তব্যের সঙ্গে তুমি কি একমত? যুক্তি দাও।

Please follow and like us:
0
20
Pin Share20

Leave a reply

Minimum length: 20 characters ::
RSS
Follow by Email
YOUTUBE
PINTEREST
LINKEDIN