Search
Friday 5 June 2020
  • :
  • :

শাহরাস্তি উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাসহ নতুন করে আক্রান্ত ৪ মৃত ১, মোট আক্রান্ত ৭

শাহরাস্তি থেকে মোঃ হাবিবুর রহমান ভূঁইয়াঃ শাহরাস্তি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. প্রতীক সেনসহ নতুন করে আরো ৪ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছে। এ নিয়ে উপজেলায় ৭ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে একজন মৃত রয়েছে। বুধবার (২০ মে) শাহরাস্তি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্র বিষয়টি চাঁদপুর রিপোর্টকে নিশ্চিত করেছে।জানা যায়, বুধবার আসা নমুনার রিপোর্টে ৪ জনের কোভিড-১৯ পজেটিভ বলা হয়েছে। আক্রান্তরা হলো শাহরাস্তি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. প্রতীক সেন, টামটা উত্তর ইউনিয়নের ঢুশুয়া গ্রামের মুন্সী বাড়ির ঢাকায় মারা যাওয়া পোষাক শ্রমিক শামছুল আলম (৫৩), রায়শ্রী দক্ষিণ ইউনিয়নের বেরনাইয়া গ্রামের আনিসের বাড়ির আব্দুল কুদ্দুসের স্ত্রী শাহনাজ (৩০) ও তার মেয়ে পূর্নিমা (১১) আক্তার। আক্রান্তদের মধ্যে টামটা দক্ষিণ ইউনিয়নের ঢুশুয়া গ্রামের মুন্সী বাড়ির পোশাক কারখানায় কর্মরত মৃত শামছুল আলম রয়েছেন। তিনি ঢাকায় মৃত্যুবরণ করার পর রোববার (১৭ মে) সকালে গ্রামের বাড়িতে দাফনের জন্য নিয়ে আসা হয়। পারিবারিকভাবে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়ার কথা বলা হলেও এলাকায় করোনা উপসর্গ নিয়ে তার মৃত্যু হয়েছে এবং এই গ্রামে তাকে দাফন করা যাবেনা মর্মে মাইকিং করা হয়। পরে ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক দর্জি সামাজিক দূরত্ব মেনে জানাজা শেষে তার লাশ দাফন করেন।রায়শ্রী দক্ষিণ ইউনিয়নের বেরনাইয়া গ্রামের আক্রান্ত শাহনাজের স্বামী প্রবাসী মোঃ আঃ কুদ্দুস জানান, ৬ দিন আগে তার স্ত্রী ও ২ মেয়ে ঢাকার মিরপুর হতে এলাকায় আসে। তার স্ত্রীর জ্বর থাকায় পরদিন শাহরাস্তি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নমুনা দেয়া হলে বুধবার তাদের মধ্যে ২ জনের করোনা পজেটিভ বলে জানানো হয়।শাহরাস্তি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার অচিন্ত্য কুমার চক্রবর্তী জানান, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ প্রতীক সেন অসুস্থতা জনিত কারণে ১০ দিন চট্টগ্রামে চিকিৎসাধীন ছিলেন। সেখানে বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।রোববার কর্মস্থলে ফেরার পর তিনি জ্বরে আক্রান্ত হলে তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়। আজ তিনিসহ ৪জন আক্রান্ত বলে সিভিল সার্জন অফিস হতে পাঠানো রিপোর্টে জানানো হয়। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলাপ করে তার সংস্পর্শে আসা অন্যান্য কর্মকর্তা কর্মচারীদের পরীক্ষার ব্যপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।শাহরাস্তি উপজেলায় পূর্বের ৩ জনসহ এ নিয়ে ৭ জন করোনা আক্রান্ত রয়েছে। এখন পর্যন্ত ১২৫ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। যার মধ্যে ১১৬ টি রিপোর্ট নেগেটিভ ও ২ টি অপেক্ষমাণ রয়েছে। রায়শ্রী দক্ষিন ইউনিয়নের বেরনাইয়া আনিছের বাড়ির আবদুল কুদ্দুসের বাড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শিরিন আক্তার এর নির্দেশে লকডাউন করা হয়। বুধবার বিকেলে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আবু হানিফ, সচিব সনজীব চন্দ্র চন্দ, খিলাবাজার পুলিশ ফাঁড়ির এস আই মোঃ জাকির হোসেন কুদ্দুসের বাড়িতে প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী দিয়ে আসেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরো সংবাদ




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close