Search
Tuesday 25 February 2020
  • :
  • :
সর্বশেষ সংবাদ

বিচারপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদ পুনরায় প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান

নিজস্ব প্রতিবেদক- বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল এর চেয়ারম্যান হিসেবে বিচারপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদকে পুনরায় নিয়োগ প্রদান করা হয়েছে।গতকাল সোমবার জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয়ের স্মারক নং-০৫০০০০০০১৪৬০০০০৮.১৭ (অংশ-১)-৫৩৪। তারিখ-০৯-১২-২০১৯ প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে উপসচিব মোঃ অলিউর রহমান স্বাক্ষরিত পত্রে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান পদে চুক্তি ভিক্তিক নিয়োজিত বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের আপীল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি মোহাম্মদ মমতাজ উদ্দিন আহমেদকে প্রেস কাউন্সিল অ্যাক্ট ১৯৭৪ অনুযায়ী তার চুক্তির মেয়াদ গত ২২ আগস্ট ২০১৯ অথবা যোগদানের তারিখ থেকে পরবর্তী ১ বছরের জন্য বর্ধিত করা হলো।বিচারপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদ বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল এর চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলকে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এক অনন্য উচ্চতায় প্রতিষ্ঠিত করেছেন। তিনি জাতীয়ভাবে প্রেসের স্বাধীনতা ও সাংবাদিকতার মান উন্নয়ন ও সংরক্ষণে বিগত কয়েক বছর অনেক বেশী কার্যকর ভূমিকা রেখেছেন। তিনি দক্ষতা ও আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব পালনের ফলে বর্তমানে বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল দেশে ও বিদেশে একটি গ্রহনযোগ্য প্রেস বান্ধব ও জনবান্ধব প্রতিষ্ঠান হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করেছে। তাঁর নেতৃত্বেই প্রেস কাউন্সিল অ্যাক্ট ১৯৭৪ যুগোপযোগী করার খসড়া তৈরী করা হয়।বিচারপতি জনাব মোহাম্মদ মমতাজ উদ্দিন আহমেদ বিগত ৫ বছরে বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের কর্মপ্রয়াসকে আন্তর্জাতিক বিশ্বে তুলে ধরেছেন। সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে পারস্পরিক সহযোগীতা করার খসড়া তৈরী করা হয়। সম্পসারনের লক্ষে উক্ত সময়ে প্রেস কাউন্সিল অব ইন্ডিয়া ও প্রেস কাউন্সিল নেপাল-এর সাথে সমঝোতা স্মারক (এম ও ইউ) স্বাক্ষর করেছেন এবং তা বাস্তবায়নের জন্য কর্মপরিকল্পনা (ডাব্লিউ এ পি সি) এর নির্বাহী সদস্য হিসেবে বাংলাদেশের গনমাধ্যমের কার্যক্রম বিশ্বের কাছে তুলে ধরেছেন। পাশাপশি সার্কভূক্ত দেশের প্রেস কাউন্সিল সমূহের মধ্যে একটি জোট গঠনের প্রক্রিয়ায় উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করেছেন। তিনি সংবাদপত্র ও সাংবাদিকদের মাঝে বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল পদক ২০১৮ ও ২০১৯ তুলে দেন। এছাড়াও তিনি প্রেস কাউন্সিল অ্যাক্ট ১৯৭৪ এর গেজেট প্রকাশের দিনটিকে (১৪ ফেব্রয়ারী) বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল দিবস হিসেবে প্রবর্তন করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরো সংবাদ




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close