Search
Thursday 2 April 2020
  • :
  • :
সর্বশেষ সংবাদ

অর্থনীতির ধীরগতি: বাড়ছে বেকারত্ব

শীর্ষ সমাচার ডেস্ক : অর্থনীতির প্রবৃদ্ধিতে ধীরগতি এবং বৈষম্যের বিস্তারে বিশ্বে বাড়ছে বেকারত্ব এবং আগামী বছরগুলোতে বেকারত্ব আরও বাড়াবে বলে আভাস দিয়েছে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা-আইএলও।
জাতিসংঘ সংস্থাটি বলেছে, ২০১৯ সাল নাগাদ বিশ্বে কর্মহীন মানুষের সংখ্যা দাঁড়াবে ২১ কোটি ২০ লাখে। এই সংখ্যা বর্তমানে ২০ কোটি ১ লাখ।
বুধবার প্রকাশিত ‘ওয়ার্ল্ড এনপ্লয়মেন্ট অ্যান্ড সোসাল আউটলুক- ট্রেন্ড’ প্রতিবেদনে কর্মসংস্থান পরিস্থিতি নিয়ে এই আভাস দেয় আইএলও।
সংস্থার মহাপরিচালক গাই রাইডার বলেন, “২০০৮ সালে বিশ্ব অর্থনীতিতে মন্দাবস্থা শুরুর পর ৬ কোটি চাকরি হারিয়ে গেছে। আমাদের প্রক্ষেপণ বলছে, একই দশকে শেষ নাগাদ এই ধারা চলতে থাকবে। তার মানে আমাদের আত্মতৃপ্তির কোনো সুযোগ নেই।”
আইএলওর পরিসংখ্যান বলছে, যুক্তরাষ্ট্র ও জাপানে কর্মসংস্থান বাড়লেও বড় দুই অর্থনীতির অন্যদেশ বিশেষ করে ইউরোপের দেশগুলো এখনও সঙ্কটে রয়েছে।
প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিশ্বে বেকার মানুষের তিন-চতুর্থাংশের বাস দক্ষিণ এশিয়া ও আফ্রিকার সাহারা অঞ্চলে।
দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশে বেকারত্বের হার আগামী বছরগুলোতে ধীরে হলেও কমবে বলে এতে আভাস মিলেছে।
তেলের অব্যাহত দরপতনের ফলে আসছে দিনগুলোতে আরব অঞ্চলে সঙ্কট দেখা দিতে পারে আভাস দিয়েছে সংস্থাটি।
উন্নয়নশীল দেশগুলোতে কর্মজীবী মানুষের ৩৪ শতাংশ মধ্যবিত্ত শ্রেণি থেকে আসা বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।
রাইডার বলেন, “এটা সুখের কথা যে ঝুঁকিপূর্ণ শ্রম এবং দারিদ্র্যসীমার নিচে থাকা চাকরিজীবী মানুষের সংখ্যা কমেছে। তবে এখনও অর্ধেকের বেশি মানুষের নিরাপদ কর্মপরিবেশ ও মৌলিক চাহিদা এখনও পূরণ হয়নি, যা মেনে নেয়ার নয়। আর নারীদের ক্ষেত্রে এটা আরও ভয়াবহ।”
আইএলও বলছে, আসছে বছরগুলোতে কর্মসংস্থান সৃষ্টি হতে পারে বাসস্থান ও রেস্তোরাঁ খাতে। সেবা খাতে গত বছরগুলোতে কর্মসংস্থান বাড়লেও তা ধীরে ধীরে কমতে থাকবে।
বিশ্বে কর্মসংস্থানের সবচেয়ে বড় খাত এখনও কৃষি। এই খাতে কর্মসংস্থান আগের মতোই থাকবে বলে আভাস আইএলওর।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরো সংবাদ




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close